লিপ ইয়ার কাকে বলে ? কেন হয়

লিপ ইয়ার কাকে বলে, কিভাবে বের করে?


আপনি যদি লিপ ইয়ার কাকে বলে, লিপ ইয়ার কিভাবে বের করে,লিপ ইয়ার কেন হয় ,লিপ ইয়ার নির্ণয় করার শর্ত , লিপ ইয়ারের দিন সংখ্যা কত সে সম্পর্কে কোনো কিছুই  জানেন তবে আজ এই আর্টিকেল এই নিয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন ।

লিপ ইয়ার কাকে বলে

- %25E0%25A6%25B2%25E0%25A6%25BF%25E0%25A6%25AA %25E0%25A6%2587%25E0%25A6%25AF%25E0%25A6%25BC%25E0%25A6%25BE%25E0%25A6%25B0 %25E0%25A6%2595%25E0%25A6%25BE%25E0%25A6%2595%25E0%25A7%2587 %25E0%25A6%25AC%25E0%25A6%25B2%25E0%25A7%2587 1

সাধারণত ইংরেজি বছর অনুযায়ী February মাসের দিনসংখ্যা হয় 28।

কিন্তু প্রতি চার বছর অন্তর ফেব্রুয়ারি মাসে একটি অতিরিক্ত দিন যোগ করে সেটিকে 29 দিন করা হয় এবং সে বছরটি 365 দিন না হয়ে 366 দিন হয়ে থাকে।

বছরটি যখন 366 দিন হয় তখন সেই বছরটিকে লিপইয়ার(leap year ) বা অধিবর্ষ বলা হয়

লিপিয়ার প্রচলনের ইতিহাস (history behind leap-year )

প্রাচীনকালে সবচেয়ে বড় সাম্রাজ্য গুলির মধ্যে রোম সাম্রাজ্য ছিল অন্যতম।

এই রোমান সমাজে 355 দিনের ক্যালেন্ডার এর প্রচলন ছিল এবং প্রতিটি মাস 22/23 দিন হিসেবে ধরা হতো।

এছাড়াও দুই বছর অন্তর অন্তর একটি বিশেষ ঋতুতে উৎসবেরও আয়োজন করা হতো।

যাকে লিপ ইয়ার এর জনক হিসেবে ধরা হয় তিনি হলেন জুলিয়াস সিজার।

এই জুলিয়াস সিজার রোমান সম্রাট হলেও মিশর জয় করার পর তিনি রোমান ও মিশরীয় ক্যালেন্ডারকে এবং তার সঙ্গে সংস্কৃতিতেও মিশ্রণ  ঘটান

সেই সময়কার আলেকজান্দ্রিয়ার জ্যোতির্বিদ সসিজিনেসের গণনা অনুযায়ী জুলিয়াস সিজার 365 দিনে বছর ধরা শুরু করেন।

পরে তিনি পুরো ব্যাপারটিকে আরো সহজ করে প্রতি চার বছর অন্তর দ্বিতীয় মাসে একটি দিন বাড়িয়ে ধরতে শুরু করেন। এখান থেকেই লিপ ইয়ারের জন্ম হয় ।

লিপ ইয়ার কেন হয়

আমরা জানি পৃথিবী দু’রকম এর গতি রয়েছে
  • আহ্নিক গতি
  • বার্ষিক গতি
এখন আমরা জানি আহ্নিক গতি অনুযায়ী দিনরাত্রি হয় কারণ এখানে, পৃথিবী নিজের চারিদিকে 24 ঘন্টায় এক পাক ঘুরে আসে
এখন বার্ষিক গতিতে কি হয়?

পৃথিবী তার কক্ষপথে সূর্যকে এক পাক ঘুরে আসলে সেই ঘূর্ণনকে বার্ষিক গতি বলা হয়।

বার্ষিক গতি সাধারণত আমরা 365 দিন ধরেই বা এক বছর ধরে নিই।

কিন্তু পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে একবার ঘুরতে সময় লাগে 365 দিন 5 ঘন্টা 48 মিনিট বা সহজে ধরলে 365 দিন 6 ঘন্টা
কিন্তু আমরা বছর ধরি 365 দিনে , 6 ঘন্টা পুরোপুরি বাদ দিয়ে দিই

এখন এই 6 ঘন্টা গুলো প্রতি চার বছর অন্তর জমা হতে হতে 24 ঘন্টা হয়ে দাঁড়ায় যা কিনা একদিনের সমান সুতরাং ফেব্রুয়ারি মাসে একদিন যোগ করা হয়।

লিপ ইয়ার কিভাবে বের

আগে আমরা দেখলাম পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে এক পাক ঘুরে আসে 365 দিন 5 ঘন্টা 48 মিনিট 46 সেকেন্ড
কিন্তু আমরা নিজেদের জন্য 365 দিন 6 ঘন্টা ধরেনি কিন্তু এখানে আমরা প্রতি বছর 11 মিনিটের সমস্যা থেকে যায়।
এই সমস্যাটা দূর করার জন্য যে সমস্ত বছরগুলোকে 400 দিয়ে ভাগ করা যায় কেবলমাত্র সেগুলোকেই লিপ ইয়ার ধরা যুক্তিযুক্ত

কিন্তু সেক্ষত্রে 6 ঘন্টার হিসেব মেলেনা তাই 4 দিয়ে ভাগ গেলেও সেটিকে লিপ ইয়ার ধরা হয় ।

লিপ ইয়ার নির্ণয় করার শর্ত

1984, 1988, 2000 প্রভৃতি সালগুলোকে leap year ধরা হবে কারণ সেগুলো 4 বা 400 দিয়ে ভাগ যায় কিন্তু 1900 leap-year নয় কারণ এটি 4 বা 400 দিয়ে ভাগ যায়না।

লিপ ইয়ারের দিন সংখ্যা কত

ফেব্রুয়ারি মাসে সাধারণত 28 দিন থাকলেও লিপ ইয়ারের বছরটিতে সেটি 29 দিন হয়ে যায়। এই অতিরিক্ত দিনটিকে leap day নামেও বলা হয় এবং বছরে 366 দিনের।

পরবর্তী লিপ ইয়ার কবে কবে হবে 

2020 সালের পরবর্তীতে 2024,2028,2032,2036 সালগুলি লিপ ইয়ার হবে।
সবশেষে ,

আজকের আর্টিকেলে আমরা জানলাম , লিপ ইয়ার কাকে বলে, লিপ ইয়ার কিভাবে বের করে, লিপ ইয়ার কেন হয় , লিপ ইয়ার নির্ণয় করার শর্ত, লিপ ইয়ারের দিন সংখ্যা কত সে সম্পর্কে সব কিছু। আশা করি আজকের আর্টিকেলটির মাধ্যমে leap year নিয়ে সবকিছু বুজতে পেরেছেন।

পড়ুন – গোলক কাকে বলে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *