2021-এ কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় | How To Be a Blogger In Bengali

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় | How To Be a Blogger In Bengali


Blogging এর ব্যাপারে সবারই অনেক প্রশ্ন থাকে বা জানাতে চান। আজকে আমি আপনাদের জানাবো কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়, ব্লগিং করতে গেলে কি কি জানা বা যোগ্যতা আবশ্যক ।

আমি গত ২ বছরের বেশি সময় ধরে ব্লগিং করছি এবং অনলাইনে এসব বিষয় নিয়ে আমি প্রায় ৪ বছরের বেশি রিসার্চ করে চলেছি । তাই আজ আমি আমার অভিজ্ঞতা দিয়ে blogger হওয়ার সাফল্য, ব্যার্থতা সব কিছু নিয়েই আলোচনা করব

ব্লগ লেখার ব্যাপারটা বা ব্লগিং করার ব্যাপারটা অনেক আগে থেকেই রয়েছে, কিন্তু তখন আমাদের দেশগুলোতে অতটা বেশি জনপ্রিয় হয়নি।

কিন্তু এখন ব্লগিং বিষয়টি অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে কারন এখান থেকে ভালো পরিমানে অর্থ উপার্জন করা যায়

তাই অনেকেই আজ business purpose blogging শুরু করেছে ।

আজ আমরা জেনে নিই কিভাবে ব্লগার হওয়া সম্ভব সেই নিয়ে বিস্তারিত

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় | How To Be a Blogger In Bengali

ব্লগার কারা (Who are Blogger)

Online এ বা গুগলে যখন আপনি কিছু সার্চ করেন তখন search result-এ অনেক ওয়েবসাইট পর পর আসে।

এই সমস্ত ওয়েবসাইট যারা বানিয়ে আর্টিকেল লিখে গুগলে search result-এ যারা নিজের website rank করায় বা এই ধরনের কাজ করে থাকে তাদের ব্লগার বলে

আর বিভিন্ন ধরনের blog বা website নিয়ে গড়ে উঠেছে blogging industry

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়

ব্লগার হওয়ার জন্য নির্দিষ্ট কোনো নিয়ম নেই আপনাকে বুঝতে হবে,যে যে জিনিসগুলো ব্লগিংয়ে দরকার এবং সেগুলো আপনার মধ্যে রয়েছে কিনা

সেই সব গুলো নিয়ে আমি আলোচনা করেছি একে একে

যোগ্যতা প্রয়োজনহীন 

ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রে যোগ্যতা কখনই বাধা নয় আপনার যদি কাজ করার ইন্টারেস্ট থাকে তাহলে আপনি ব্লগিং করতে পারবেন

একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট প্রয়োজন

ব্লগিং করার জন্য আপনাকে একটি ওয়েবসাইট বানাতে হবে এবং যদি সিরিয়াসভাবে ব্লগিং করতে আগ্রহী তাহলে আপনাকে একটু টাকা invest করতে হবে

দুই প্লাটফর্মে আপনি আপনার ব্লগ বানাতে পারবেন। blogger এবং WordPress। ব্লগারে কোনো hosting কিনতে হয়না এটি সম্পূর্ণ ফ্রি। কিন্তু এর অনেক limited features রয়েছে।

আমার মতে যদি একটি ভালো ব্লগ শুরু করতে চান এবং সেটিকে বড় করতে চান তাহলে আপনি WordPress থেকে শুরু করুন কারন একটা সময়ে আপনাকে WordPress এ আসতেই হবে

এর জন্য আপনাকে একটি ডোমেন এবং hosting কিনতে হবে । যদি invest এর ব্যাপারে জানতে চান তাহলে ২ থেকে ৩ হাজার খরচ হবে একটি ওয়েবসাইট বানাতে।

Helping others

ব্লগিং করার মুলমন্ত্র গুলোর মধ্যে একটি হল এটি আপনি ব্লগিংয়ে ততদিন সাফল্য পাবেন না যতদিন না আপনি আপনার visitor বা দর্শককে সাহায্য করবেন।

আজকে আপনি আমার আর্টিকেলটি পড়ছেন যাতে আপনাকে আমি ” কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় ” তা নিয়ে কিছু সহজ ধারনা ও আমার অভিজ্ঞতা জানাতে পারি।

কিন্তু আমি যদি আপনাদের জন্য ভেবে না লিখি আমি একটা সময় গিয়ে ব্যর্থ হয়ে যাব।

তাই সাহায্য ব্লগিংয়ের অন্যতম rule

Patience বা ধৈর্য

ব্লগিং করতে গেলে ধৈর্য বা patience খুবই একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার।

ব্লগিং জিনিসটি ব্যবসার মতোই । ব্যাবসা শুরু করার পর যেমন বেচা কেনা বাড়তে সময় লাগে তেমনই এক্ষেত্রেও একই ব্যাপার।

আবার যদি আপনার জিনিসের quality ভালো না হয় তাহলে কোনো খদ্দের আপনার জিনিস কিনবেনা। এই প্রত্যেকটি ব্যাপার ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রেও একই

নিয়মিত হওয়া

ব্লগার হওয়ার আরও একটি rule  হল নিয়মিত হওয়া। নিয়মিত মানে আপনি যদি সপ্তাহে তিনটি আর্টিকেল দেন সেটি আপনাকে প্রতি সপ্তাহে করতে হবে। আবার যদি প্রতিদিন লেখেন সেটিও আপনাকে নিয়মিত হবে

নিয়মিত হলে গুগলের চোখে আপনি অবশ্যই একটি ভালো জায়গায় থাকবেন, যেটা অত্যন্ত জরুরী।

Money as Secondary Option

এই বিষয়টা নিয়ে কিছু জিনিস আপনাকে জানানো অত্যন্ত প্রয়োজন।

আজকাল অনেকে ব্লগ খুলতে চাই শুধু টাকার কথা ভেবে। এর একটা বড় কারন হচ্ছে অনেক YouTuber বা Blogger এটাকে অনেক বাড়িয়ে বাড়িয়ে দেখায়। কিন্তু বাস্তবটা একেবারেই আলাদা

আমার ইনকাম যদি শুনেন তাহলে অবাক হবেন আমার প্রতিদিন ০.৫ ডলার ও হয়না

যদি নিজের উপর বিশ্বাস রেখে কাজ করেন তাহলে ব্লগিংয়ে সাফল্য পাবেন

লেখার প্রতি ভালোবাসা

যদি লেখার প্রতি ভালোবাসা থাকে আপনার লিখতে বোঝাতে তথ্য দিতে ভালো লাগে তবে ব্লগিং আপনারই জন্য। কোনো কিছু না ভেবে পছন্দের বিষয় নিয়ে ব্লগ খুলে লিখতে শুরু করতে পারেন

Hard-work করার ক্ষমতা

ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রে অনেক বেশি মানসিক পরিশ্রম করতে হবে আপনাকে। আমার এক একটি আর্টিকেল লিখতে প্রায় ২ দিন সময় লাগে ভালোভাবে লিখতে

এছাড়া ছবি, user friendly ও search engine optimized আর্টিকেল লিখতে অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হবে আপনাকে

নিজেকে Update রাখা ও Adoptive nature

ব্লগারদের সবসময় নিজেদের বর্তমান সময়ের সাথে update রাখতে হয়। গুগল তার ভিসিটরের সাহায্যের জন্য প্রতি নিয়ত google algorithm update করে চলেছে। তাই ভালো পরিমানে visitor পেতে Google algorithm এর সাথে সাথে নিজেকে update রাখা অত্যন্ত জরুরী

এছাড়া, নিত্যনতুন search engine optimization বা এসইও এর ক্ষেত্রে পরিবর্তন হচ্ছে তাই সেই সব modern পদ্ধতি ব্যাবহার করা অনেক বেশি জরুরী নিজেকে ব্লগিং জগতে টিকিয়ে রাখতে

এগুলো ছাড়াও fake information কে identify করে এবং সেসব থেকে শিক্ষা নিয়ে নিজের কাজ করে চলা উচিত ব্লগার হিসাবে

Take Risk

ব্লগিং করতে গেলে আপনাকে ছোট খাটো রিস্ক অবশ্যই নিতে হবে। এবং অনেক সময় ভালো কিছু পেতে রিস্ক ও অনেক বেশি জরুরী ব্লগিং এর ক্ষেত্রে

প্রশ্ন

কিভাবে ব্লগাররা টাকা ইনকাম করেন ?

সাধারণত google adsense থেকে ব্লগাররা ইনকাম করেন। এছাড়া affiliate marketing, backlink selling থেকেও ইনকাম হয়ে থাকে

ফ্রি ব্লগ কিভাবে বানানো যায় ?

ব্লগার প্ল্যাটফর্মে blogspot subdomain দিয়ে ফ্রি ব্লগ বানানো যায়।

কোন টপিকে ব্লগ শুরু করা উচিত ?

প্রত্যেক টপিকেই ইনকাম আসে ধৈর্য ধরে কাজ করলে। আপনার ইন্টারেস্ট অনুযায়ী ব্লগ বানিয়ে নিয়মিত কাজ করুন

ব্লগিংয়ে অসফল হওয়ার কারন কি ?

বেশিরভাগ ব্লগার টাকার জন্য ব্লগিংয়ে আসতে চাই তাই প্রাথমিক অবস্থায় টাকা না এলে বা ইন্টারেস্টহীন টপিকে লিখলে তারা ব্যর্থ হয়ে যায়

সবশেষে,

আশা করছি কিভাবে ব্লগার হওয়া যায় এটার উত্তর দেওয়ায় আমি সার্থক হয়েছি। শেষে একটা কথাই বলতে চাই

ব্লগিং এর জন্য আপনাকে আরও অনেক কিছু শিখতে হবে এবং আপনি ব্লগিং করলে প্রতিদিন নতুন নতুন experience আপনি পাবেন আপনার রেজাল্ট থেকেই।

এবং লং টার্মের জন্য ব্লগিং খুবই ভালো একটি ইনকামের সোর্স

পড়ুন – ব্লগিং নিয়ে সব আর্টিকেল 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *